তারাকান্দায় অপহরনের ৩ দিন পর জঙ্গলে মিললো প্রতিবন্ধী শিশু সানজিদার লাশ

মোঃ খলিলুর রহমান, বিশেষ প্রতিনিধিঃ
ময়মনসিংহের তারাকান্দায় অপহরনের ৩ দিন পর জঙ্গলে মিললো প্রতিবন্ধী শিশু সানজিদা (৮)র লাশ। আজ শুক্রবার সকালে শিশুটির লাশ জঙ্গল থেকে উদ্ধার করেছে থানা পুলিশ।

জানা যায়, উপজেলার তারাকান্দা ইউনিয়নের রামচন্দ্রপুর গ্রামের মোঃ শাহজাহান আকন্দের বাকপ্রতিবন্ধী মেয়ে কামারিয়া বিশেষ শিক্ষা বিদ্যালয়ের ১ম শ্রেনীর শিক্ষার্থী সানজিদা মঙ্গলবার দুপুরে বাড়ির উঠান থেকে অপহরণ হয়। এসময় অপহরণকারীরা একটি চিরকুট রেখে যায়। অনেক খোঁজাখুঁজির পরও শিশুটির সন্ধান পায়নি আত্নীয়স্বজনরা। এব্যাপারে তারাকান্দা থানায বুধবার সাধারণ ডায়েরী করার পর শুক্রবার (১৫ জানুয়ারী) সকালে বাড়ীর পাশের জঙ্গলে শিশুটির লাশ পড়ে থাকতে দেখে এলাকাবাসী। সংবাদ পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে শিশুটির লাশ উদ্ধার করে।এই ঘটনায় এলাকায় চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে। পূর্ব শত্রুতার জের ধরে এই অপহরণ ও হত্যাকান্ডের ঘটনা ঘটেছে বলে ধারণা এলাকাবাসীর। এলাকাবাসী ও আত্নীয়দের কথায় জানা গেছে নিখোঁজের পর শিশুটির খোঁজ দিয়ে মোবাইলে টাকা দাবি করেছে অজ্ঞাত ব্যক্তি। বারবার টাকা দাবির বিষয়টি সবার কাছে ধুম্রজাল সৃষ্টি করেছে।

ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন ময়মনসিংহ জেলা পুলিশ সুপার আহমারুজ্জামান ও ময়মনসিংহের গোয়েন্দা পুলিশের (ডিবি) অফিসার ইনচার্জ শাহ কামাল আকন্দ। এ সময় তারা শিশুটির পরিবারের লোকজনের সাথেও কথা বলেছেন।

নিহতের বাবা শাজাহান আকন্দ জানান, গত মঙ্গলবার দুপুরে বাড়ির উঠান থেকে অপহরণ হয় তার মেয়ে সানজিদা। অপহরণকারীরা একটি চিরকুটে লিখে যাওয়া নম্বরে তাদের সঙ্গে যোগাযোগ করতে লিখে যায়। কিন্তু নম্বরটি বন্ধ পাওয়া যায়। বুধবার অপহরণকারীরা ফোন দিয়ে তাদের বিকাশ নম্বরে ২০ হাজার টাকা পাঠাতে বলে। টাকা না পাঠানোয় তার মেয়েকে মেরে ফেলা হয়েছে। বুধবার থানায় সাধারণ ডায়েরি করলেও পুলিশ তার মেয়েকে উদ্ধার করতে পারেনি। সকালে জঙ্গলে লাশ পাওয়া গেল।

ওসি শাহ কামাল আকন্দ জানান, নম্বর ট্যাকিং করে অপহরণকারীদের শনাক্ত করার চেষ্টা করছিল পুলিশ। কিন্তু আজ সানজিদার লাশ পাওয়া গেল। পুরো বিষয়টি পুলিশ তদন্ত করছে। আশা করছি খুব তাড়াতাড়ি অপরাধীদের গ্রেপ্তার করতে সক্ষম হবে পুলিশ।