জেন্ডার ভিত্তিক বৈষম্য দূরীকরণে কিশোর-কিশোরী ক্লাব

মহিলা বিষয়ক অধিদপ্তর, মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের অধীনে ময়মনসিংহের ত্রিশাল উপজেলার পৌরসভা ও বারটি ইউনিয়নের প্রত্যেকটিতে একটি করে কিশোর-কিশোরী ক্লাব প্রতিষ্ঠা করে তাদের মধ্যে সচেতনতা সৃষ্টি করা হচ্ছে।

কিশোর-কিশোরীদের ক্লাবগুলোতে বাল্যবিয়ে প্রতিরোধ, যৌতুক প্রতিরোধ, জন্ম ও মৃত্যু নিবন্ধন, বিয়ে নিবন্ধন, শিশু অধিকার, নারী অধিকার, জেন্ডার ভিত্তিক বৈষম্য দূর করা, যৌন নিপীড়ন প্রতিরোধসহ নানা বিষয়ে তাদেরকে ধারণা দেওয়া হচ্ছে।

প্রতিটি ক্লাবে ১০জন ছেলে ২০জন মেয়ে মোট ৩০ জন শিক্ষার্থী রয়েছে যাদের বয়স ১০থেকে ১৯ বছর আর ওই ক্লাব গুলোতে শুক্র-শনি সপ্তাহে দুইদিন কিশোর-কিশোরীদেরকে নিয়ে ক্লাস নেওয়া হয়ে থাকে।

ইতোমধ্যে ক্লাবগুলো উপজেলার কিশোর-কিশোরীদের সচেতন করতে বাল্য বিয়ে প্রতিরোধ, যৌতুক প্রতিরোধ, জন্ম ও মৃত্যু নিবন্ধন, বিয়ে নিবন্ধন, শিশু অধিকার, নারী অধিকার, জেন্ডার ভিত্তিক বৈষম্য দূর করা, যৌন নিপীড়ন প্রতিরোধসহ নানা বিষয়ে তাদেরকে ধারণা দেওয়া হচ্ছে।

সরেজমিনে দেখা যায়,গত শুক্রবার বিকেলে উপজেলার মোক্ষপুর ইউনিয়নে সানকী ভাঙ্গা সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের একটি রুমে কিশোর কিশোরী ক্লাবের শিক্ষার্থীর মধ্যে বাল্য বিয়ের কুফল সমন্ধে আলোচনা করছেন আবৃত্তি শিক্ষক লুৎফর রহমান রিয়েল।ওই ক্লাবের জেন্ডার প্রমোটার মোজাম্মেল হক ক্লাস শেষে বলেন, বাল্য বিয়ের কুফল, এলাকায় বাল্য বিয়ের আয়োজন হলে কি করণীয়, নিজ পরিবারে বাল্য বিয়ের বিরুদ্ধে ইতিবাচক মনোভাব তৈরি করাসহ এমন একাধিক বিষয় নিয়ে আজ কিশোর-কিশোরীদের সঙ্গে কথা বলেছি।

কিশোর-কিশোরীদের সঙ্গীত ও আবৃত্তি শিক্ষা প্রদানের মধ্য দিয়ে তাদের মধ্যে সংস্কৃতির প্রতি অনুরাগ সৃষ্টি হবে। আর এ ধরনের বিনোদনের ফলে অসামাজিক কাজে লিপ্ত হওয়া থেকে তারা দূরে থাকবে।