জন্ম ও মৃত্যু নিবন্ধনে ময়মনসিংহ জেলায় তিন ক্যাটাগরীতেই ত্রিশাল প্রথম

ফারুক আহমেদ,ত্রিশাল :
জন্ম নিবন্ধন ও মৃত্যু নিবন্ধন কার্যক্রম গতিশীল করে ময়মনসিংহ জেলার ১৩টি উপজেলার মধ্যে উপজেলা, পৌরসভা ও ইউনিয়ন পরিষদ এই তিন ক্যাটাগরীতেই সেরা হয়েছে ত্রিশাল।
জেলায় মোট ১৩টি উপজেলার মধ্যে ত্রিশাল উপজেলা, ১০টি পৌরসভার মধ্যে ত্রিশাল পৌরসভা ও ১৪০টি ইউনিয়ন পরিষদের মধ্যে ত্রিশালের বালিপাড়া ইউনিয়ন প্রথম স্থান অর্জন করেছে। উপজেলা পর্যায়ে সেরা হওয়ার ক্ষেত্রে যিনি নেপথ্যে কাজ করেছেন তিনি হলেন, ত্রিশাল উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ আক্তারুজ্জামান।
এ বিষয়ে সংশ্লিষ্ট দপ্তরের তালিকায় প্রথম স্থানে ত্রিশাল, দ্বিতীয় স্থানে ধোবাউড়া ও তৃতীয় স্থান অর্জন করে গফরগাঁও উপজেলা।
ত্রিশাল উপজেলা আইসিটি সেন্টার সূত্র জানায়, গত সেপ্টেম্বর মাসে জন্ম নিবন্ধনে ত্রিশাল উপজেলার টার্গেটে ছিল ৯৫৪জন, টার্গেট অনুযায়ী শূন্য থেকে এক বছর বয়সি জন্ম নিবন্ধন করা হয় ১৭৫২টি। যার মোট শতকরা অংশ ছিল ১৮.৬৫%। অপরদিকে মৃত্যু নিবন্ধনের টার্গেট ছিল দুইশত, যেখানে টার্গেট ছাড়িয়ে করা হয়েছে ২৯৮টি। যার মোট শতকরা অংশ ছিল ১৬৬.৩২%। ত্রিশাল ময়মনসিংহ জেলার ১৩টি উপজেলার মধ্যে জন্ম ও মৃত্যু নিবন্ধনে প্রথম স্থান অর্জন করে এবং ১৪০টি ইউনিয়ন পরিষদের মধ্যে ত্রিশাল উপজেলার ৯নং বালিপাড়া ইউনিয়ন প্রথম স্থান অর্জন করে। অন্যদিকে জেলার ১০টি পৌরসভার মধ্যে ত্রিশাল পৌরসভাও প্রথম স্থান অর্জন করেছে।
বালিপাড়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান গোলাম মোহাম্মদ বাদল জানান, পরিষদের সকল সদস্য ও আল্লাহর রহমতে জেলার ১৪০টি ইউনিয়ন পরিষদের মধ্যে প্রথম হতে পেরেছি। ভবিষ্যতেও এ ধারাবাহিকতা বজায় রাখব ইনশাআল্লাহ।
ত্রিশাল পৌরসভার মেয়র এবিএম আনিছুজ্জামান জানান, ‘জন্ম নিবন্ধনে টার্গেট ছিল ৭৮ জন, যার মধ্যে শূন্য থেকে এক বছরের মধ্যে নিবন্ধন করা হয়েছে ৯৪জন। যার গড় হচ্ছে ১২০.৫১%। অপরদিকে মৃত্যু নিবন্ধনের টার্গেট ছিল ১৬জন যার ১৬টিই করা হয়েছে। আগামীতেও এ ধারাবাহিকতা অব্যাহত রাখবেন বলেও তিনি প্রত্যাশা করেন’।
উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা মো. আক্তারুজ্জামান জানান, ‘সরকারী নির্দেশনা অনুযায়ী জন্ম ও মৃত্যু নিবন্ধন কার্যক্রমের সফল বাস্তায়নে ত্রিশাল উপজেলার সকল ইউনিয়নের চেয়ারম্যান, সচিব, মেম্বার ও সংশ্লিষ্টদের সাথে বারবার মতবিনিময় করা হয়েছে। চেয়ারম্যান ও সচিবদেরকে জন্ম ও মৃত্যু নিবন্ধনের জন্য জোর তাগিদ দেওয়া হয়েছে, তথ্য যাচাই বাছাই করে যেন সেবা প্রত্যাশীদের দ্রæত সেবা প্রদান করা হয় সে বিষয়েও নির্দেশনা দেওয়া হয়। নির্দেশনা ও কাজের সফল বাস্তবায়নে সবসময় ইউনিয়ন পরিষদের দায়িত্বশীলদের সাথে যোগাযোগ রক্ষা করার ফলে আজ ত্রিশাল উপজেলা, ত্রিশাল পৌরসভা ও উপজেলার বালিপাড়া ইউনিয়ন পরিষদ জেলায় প্রথম স্থান অর্জন করেছে। এর ধারাবাহিকতা ধরে রাখার চেষ্টা করবো’।