ছাত্রদলের কাউন্সিল বন্ধে আ.লীগ নয়, বিএনপির নেতৃত্ব দায়ী: কাদের

ছাত্রদলের কাউন্সিল বন্ধের পিছনে বিএনপির নেতৃত্বের সংকটকে দায়ী বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। তিনি বলেছেন, ‘আওয়ামী লীগ কেন ছাত্রদলের সম্মেলন বন্ধ করতে যাবে? ছাত্রদলের এই সংকটের জন্য বিএনপির নেতৃত্বই দায়ী। বিএনপির আজকের সংকট তাদের নিজেদের ব্যর্থতার জন্য। তাদের বিদ্বেষ প্রসুত রাজনীতি, তাদের নেতিবাচক রাজনীতি বিএনপিতে সংকট তৈরি করেছে।’

শনিবার (১৪ সেপ্টেম্বর) রাজধানীর সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে ‘২৮ সেপ্টেম্বর রাষ্ট্রনায়ক শেখ হাসিনার জন্মদিন’ উপলক্ষে ঢাকা মহানগর দক্ষিণ যুবলীগ আয়োজিত আলোচনা সভা, কোরআন তেলাওয়াত, মিলাদ ও দোয়া মাহফিল শেষে তিনি এ মন্তব্য করেন।

সরকারের হস্তক্ষেপে ছাত্রদলের কাউন্সিলে স্থগিতাদেশ দেয়া হয়েছে- বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলামের এমন অভিযোগের দৃষ্টি আকর্ষণ করলে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘ছাত্রদলের নেতাদের মামলার কারণে তাদের কাউন্সিল বন্ধ হলো। তারাই তাদের বিরোদ্ধে মামলা করলো, মামলা করে সম্মেলন বন্ধ করে দেয়া হলো। এখানেও নন্দঘোষ শেখ হাসিনার দোষ, এখানেও নন্দ ঘোষ আওয়ামী লীগের দোষ। নিজেরা নিজেদের বিরুদ্ধে মামলা করে সম্মেলন পণ্ড করেছে। এখানে আওয়ামী লীগ বা সরকারে এখানে দোষ কি?’

শেখ হাসিনার উন্নয়ন অর্জনই বিরোধী রাজনীতির জন্য সংকট তৈরি করেছে মন্তব্য করে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, ‘শেখ হাসিনার উন্নয়ন অর্জন দেখলে এই দেশে অনেকের আঁতে ঘাঁ লাগে, যন্ত্রনা শুরু হয়। শেখ হাসিনার উন্নয়ন অর্জন ও তার অপ্রতিরুদ্ধ অগ্রযাত্রা বাংলাদেশের বিরোধী রাজনীতির জন্য সংকটের কালো ছায়া নেমে এসেছে।’

সরকারদলীয় দুর্নীতিবাজদের বিরুদ্ধে কঠোর অবস্থানে জানিয়ে সেতুমন্ত্রী বলেন, ‘আওয়ামী লীগ সরকারের আমলে সরকারের অনেক মন্ত্রী দুদকে হাজিরা দিচ্ছে, আওয়ামী লীগের অনেক নেতাকর্মী জেলে আছে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আছে বলেই এসব সম্ভব হয়েছে। আমাদের দলের সবাই যে চকবাজারের ইমাম একথা বলবো না, যাদের বিরুদ্ধে অভিযোগ আছে তাদের বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে।’

ঢাকা মহানগর দক্ষিণ যুবলীগ আয়োজিত আওয়ামী লীগ সভানেত্রী শেখ হাসিনার জন্মদিন উপলক্ষে জনগণের ক্ষমতায়ন দিবসে ৫০০ জন মাওলানার কোরআন খতম, মিলাদ মাহফিল অনুষ্ঠানে রাজনৈতিক প্রশ্নের জবাবে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘আপনারা সাংবাদিকতা করেন, আমিও আপনাদের অগ্রজ। আপনারা আজকের এমন একটি সুন্দর অনুষ্ঠানকে পত্রিকার শিরোনাম রাজনৈতিক করার জন্য ভিন্ন দিকে নিয়ে যাচ্ছেন। আপনারা প্রাসঙ্গিক না কেন? আজকের যেই অনুষ্ঠানে এসেছি তাকে ভিন্ন দিকে নিয়ে নিয়ে যাচ্ছেন। মন্ত্রিত্ব গেলে আমি আবার সাংবাদিকতায় আসবো।’

আলোচনা সভায় যুবলীগ চেয়ারম্যান ওমর ফরুক চৌধুরী মাসব্যপী কর্মসূচি ঘোষণা করে বলেন, ‘৯ সেপ্টেম্বর ঢাকা মহানগর দক্ষিণ যুবলীগ ও ১১ সেপ্টেম্বর উত্তর যুবলীগ শেখ হাসিনার জন্মদিন উপলক্ষে জনগণের ক্ষমতায়ন দিবসের কর্মসূচি পালন করেছে। আগামী ১৬ সেপ্টেম্বর ঢাকা জেলা ও ১৭ গাজীপুর জেলায় এই দিবস পালন করা হবে। এছাড়া সারা দেশে জেলা ও উপজেলায় ২৮ সেপ্টেম্বর জনগণের ক্ষমতায়ন দিবস পালন করবে।’

দক্ষিণ যুবলীগের সভাপতি ইসমাইল চৌধুরী সম্রাটের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় বক্তব্য দেন আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর কবির নানক, অর্থনীতি সমিতির সভাপতি অধ্যাপক আবুল বারকাত, পররাষ্ট্রমন্ত্রী আব্দুল মোমেন, যুবলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক মির্জা আজম, যুবলীগ চেয়ারম্যান ওমর ফারুক চৌধুরী, সাধারণ সম্পাদক হারুনুর রশিদ, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক ইকবাল মাহমুদ বাবলু।