চিরচেনা রূপে রাজধানী ঢাকা

করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ও মৃত্যুরোধে সরকারঘোষিত টানা কঠোর বিধিনিষেধ শিথিলের পর আজ (১১ জুলাই) থেকে চিরচেনা রূপে ফিরতে শুরু করেছে রাজধানী ঢাকা। যান্ত্রিক নগরীখ্যাত ঢাকাসহ সারাদেশে গণপরিবহন বন্ধ থাকায় এতদিন রাস্তাঘাটে যানবাহন ও মানুষের চলাচল ছিল সীমিত।
বিধিনিষেধে জরুরি প্রয়োজন ছাড়া বাইরে বের হওয়া লোকজনকে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর জিজ্ঞাসাবাদের মুখে পড়তে হয়েছে। পুলিশের অপরাধ বিভাগ ও ট্রাফিক বিভাগের কর্মকর্তারা চেকপোস্ট বসিয়ে যানবাহন তল্লাশি করে অকারণে বাইরে বের হওয়া যানবাহনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের ও আর্থিক জরিমানা করেন।

এ ছাড়া রাজধানীর বিভিন্ন পয়েন্টে ভ্রাম্যমাণ আদালতের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটরা বিনা কারণে বাইরে বের হওয়া মানুষকে আর্থিক জরিমানাসহ কারাগারে পাঠান। কিন্তু আজ থেকে লকডাউন শিথিল হওয়ায় ভোর থেকেই রাস্তাঘাটে মানুষের ভিড় বাড়তে থাকে। কাকডাকা ভোর থেকেই ঘোরে গণপরিবহনের চাকা। শুধু গণপরিবহনই নয় আজ থেকে ছোটবড় দোকানপাট ও শপিংমল মার্কেট খুলে দেয়ার কারণে হাজার হাজার মানুষ রাস্তায় নামেন।
বুধবার সরেজমিন রাজধানীর বিভিন্ন রাস্তাঘাট ঘুরে দেখা গেছে, লকডাউন শিথিলের প্রথম দিনের সকালেই রাজধানী প্রায় চিরচেনা রূপে ফিরে এসেছে। বিভিন্ন রাস্তাঘাটে রিকশা, সাইকেল, সিএনজিচালিত অটোরিকশা, মোটরসাইকেল, ভ্যান গাড়ি, কাভার্ডভ্যান, ছোট-বড় বাস, জিপগাড়ি ও মাইক্রোবাসসহ অসংখ্য যানবাহন চলাচল করছে। লকডাউনের কারণে এতদিন অধিকাংশ এলাকার রাস্তাঘাটে ট্রাফিক পুলিশ সদস্যদের অনেকটা নির্বিকার সময় কাটলেও আজ ভোর থেকেই বিভিন্ন পয়েন্টে ট্রাফিক পুলিশ সদস্যদের তৎপরতা দেখা যায়। সকালের দিকে সরকারি-বেসরকারি অফিসগামীদের ভিড় থাকায় বেশ কয়েকটি রাস্তায় যানজটের সৃষ্টি হয়। এ সময় ট্রাফিক পুলিশকে ব্যতিব্যস্ত হয়ে যানজট সামাল দিতে দেখা যায়।