চট্টগ্রামে পাহাড় কেটে রাস্তা নির্মাণ, ১০ কোটি টাকা জরিমানা

নগরের বায়েজিদ বোস্তামী থেকে ফৌজদারহাট পর্যন্ত সড়ক নির্মাণে অতিরিক্ত পাহাড় কেটে রাস্তা নির্মাণ করায় চট্টগ্রাম উন্নয়ন কর্তৃপক্ষকে (সিডিএ) ১০ কোটি ৩৮ লাখ ৬৯ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে। পরিবেশ অধিদফতর এ জরিমানা করে।

পরিবেশ অধিদফতরের ঢাকা কার্যালয়ে বুধবার (২৯ জানুয়ারি) শুনানি শেষে প্রতিষ্ঠানটিকে জরিমানা করা হয়। পরিবেশ অধিদফতর চট্টগ্রামের পরিচালক মো. নুরুল্লাহ নুরী বিষয়টি সংবাদমাধ্যমকে বিষয়টি নিশ্চিত করেন।

তিনি বলেন, ‘চট্টগ্রাম নগরের বায়েজিদ বোস্তামী থেকে ফৌজদারহাট পর্যন্ত যে সড়ক নির্মাণ করা হয়েছে, সেখানে প্রায় ১৫টি পাহাড় নির্বিচারে কেটে ফেলা হয়েছে। আজ এ ঘটনায় ঢাকায় শুনানি অনুষ্ঠিত হয়। শুনানি শেষে চট্টগ্রাম উন্নয়ন কর্তৃপক্ষকে ১০ কোটি ৩৮ লাখ ৬৯ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে। এখন শুধু আদেশটাই দেওয়া হয়েছে।’

বিস্তারিত আরও পরে বলা যাবে বলে জানান তিনি।

পরিবেশ অধিদফতর সূত্রে জানা যায়, উত্তর পাহাড়তলী মৌজার ৭৭৩-৭৭৪, ৩০১, ২০০, ১৯৮, ১৩৯, ১৯৫, ১৮৭ জঙ্গল সলিমপুর মৌজার ৩৬১, ৩৫৯, ৩৫৭-৩৫৮ এবং জঙ্গল লতিফপুর মৌজার ৬২, ৬০-৬২ ও ৩৪ নং দাগের পাহাড় কেটে এ সড়ক তৈরি করেছে সিডিএ। প্রকল্প চলাকালে পরিবেশ অধিদফতর এটি নিয়ে একটি সরেজমিন প্রতিবেদন তৈরি করে। এ প্রতিবেদনে তখন বিভিন্ন মৌজার ৩৫৭, ৩৫৮ ও ৩৫৯ দাগের পাহাড় কাটার প্রমাণ পায়। সে সময় অনুমতি ছাড়া পাহাড় কাটায় সিডিএকে নোটিশ দেয় পরিবেশ অধিদফতর। তাদের নোটিশের জবাবে শুনানিতে অংশ নিয়ে পাহাড় কাটার কথা স্বীকার করলেও পাহাড় কাটা অব্যাহত রাখে প্রতিষ্ঠানটি।

নগরের বায়েজিদ বোস্তামী থেকে ফৌজদারহাট পর্যন্ত ৬ কিলোমিটারের এই সড়ক তৈরি করতে কাটা হয়েছে ১৫টি পাহাড়। ছোট্ট একটি সড়ক করতে এত বেশি পাহাড় কাটার ঘটনা অতীতে কখনই ঘটেনি। পরিবেশ অধিদফত বারবার জরিমানা করার পরও ফৌজদারহাট-বায়েজিদের এই সংযোগ সড়ক তৈরি থেকে পিছু হটেনি সিডিএ। আইনের তোয়াক্কা না করেই সরকারি সংস্থাটি প্রকল্পটি প্রায় শেষ করে ফেলেছে।