‘গোপনে’ বিয়ে সারলেন বরিস জনসন

বাবা হওয়ার এক বছর বাদে হঠাৎ বিয়ে করেছেন ব্রিটেনের প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন। বিবিসি বলছে, বিয়ের অনুষ্ঠানের বিষয়ে আগে থেকে গণমাধ্যমকে কিছু বুঝতে দেননি তিনি।
গত ২৪ মে ব্রিটেনের ট্যাবলয়েড পত্রিকা দ্য সান লিখেছিল, সামনের বছর জুলাইতে বিয়ে করবেন বরিস জনসন।

আজ রোববার বিবিসির প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, শনিবার খুব কাছের বন্ধু এবং পরিবারের সদস্যদের নিয়ে অনুষ্ঠান সেরেছেন বরিস এবং ক্যারি সাইমন্ডস।
এ বিষয়ে কোনো মন্তব্য করতে রাজি হয়নি প্রধানমন্ত্রীর বাসভবনের কর্মকর্তারা।
তবে ওয়ার্ক অ্যান্ড পেনসন সেক্রেটারি থেরেস কফি টুইটে নবদম্পতিকে অভিনন্দন জানিয়ে লিখেছেন, বিয়ের দিনে বরিস জনসন এবং ক্যারি সাইমন্ডসকে অভিনন্দন।
মেইল অন সাইনডের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, খুব অল্প সময়ের ভেতরে ৩০ জন অতিথিকে নিমন্ত্রণ জানানো হয়। সবাইকে ইংল্যান্ডের কভিড আইন মেনে অনুষ্ঠান স্থলে প্রবেশ করানো হয়।
দ্য সানের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, প্রধানমন্ত্রীর বাসভবনের সিনিয়র সহকারীরা এ বিষয়ে কিছুই জানতেন না।
দুপুরের পরে ওয়েস্ট মিনিস্টিার ক্যাথেড্রালের সাধারণ মানুষকে বের করে দেয়া হয়।
সন্ধ্যার পরে কয়েক জন মিউজিশিয়ানকে ডাউনিং স্ট্রিটে প্রবেশ করতে দেখা যায়।
২০১৯ সালের শেষ দিকে আংটিবদল করেন জনসন। এরপর ২০২০ সালের এপ্রিলে করোনার ভয়াবহ প্রাদুর্ভাবের সময় তার ছেলে সন্তানের জন্ম হয়।
জনসনের এটি তৃতীয় বিয়ে। সাইমন্ডসের প্রথম।
সাইমন্ডস দীর্ঘদিন ধরে জনসনের রাজনৈতিক সতীর্থ। ২০১২ সালে তাকে লন্ডনের মেয়র হিসেবে জিতিয়ে আনার প্রচারণায় নেতৃত্ব দেন।
জনসন প্রথম বিয়ে করেন ১৯৮৭ সালে, অ্যালেগ্রা মোস্তিন-ওভেন নামের এক নারীকে। সেই বিয়ে স্থায়ী হয় ১৯৯৩ সাল পর্যন্ত।
পরে বিয়ে করেন ভারতীয় বংশোদ্ভূত মেরিনা হুইলারকে। গত বছর মে মাসে মেরিনাকে ডিভোর্স দেন তিনি।
ব্রিটেনে প্রধানমন্ত্রী হিসেবে সবশেষ ডিভোর্স পান ডিউক অব গ্রাফটন অগাস্টাস ফিটজরয়, সেটা ১৭৬৯ সালের কথা।