ই-পাসপোর্ট প্রদান একটি সময়োপযোগী পদক্ষেপ : রাষ্ট্রপতি

রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ বলেছেন, পাসপোর্ট বহির্বিশ্বে একটি দেশ ও জাতির মর্যাদা নির্দেশক ও গুরুত্বপূর্ণ জাতীয় দলিল। বহিরাগমন ও পাসপোর্ট অধিদফতরের উদ্যোগে অত্যাধুনিক প্রযুক্তিসম্পন্ন ই-পাসপোর্ট প্রদান কার্যক্রম শুরু হচ্ছে জেনে আমি আনন্দিত।

বুধবার (২২ জানুয়ারি) ই-পাসপোর্ট প্রদান উপলক্ষে দেয়া এক বাণীতে রাষ্ট্রপতি এসব কথা বলেন। তিনি বলেন, বিশ্বায়নের যুগে রাষ্ট্রীয় কর্মকাণ্ড, কর্মসংস্থান, শিক্ষা, গবেষণাসহ নানা কারণে এ দেশের মানুষকে পৃথিবীর বিভিন্ন দেশে ভ্রমণ করতে হয়। দেশে ও বিদেশে উপযুক্ত নাগরিক সুবিধা নিশ্চিতকরণ ও অবাধ চলাচলের ক্ষেত্রে মেশিন রিডেবল পাসপোর্ট (এমআরপি)-এর পরিবর্তে আধুনিক প্রযুক্তি সম্পন্ন ‘ই-পাসপোর্ট’ প্রদান একটি সময়োপযোগী পদক্ষেপ।

আন্তর্জাতিক মানের আধুনিক সেবাধর্মী এ উদ্যোগের সাথে সম্পৃক্ত সকলকে শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানান রাষ্ট্রপতি। তিনি বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বাংলাদেশকে বিশ্বদরবারে মর্যাদার আসনে অধিষ্ঠিত করার স্বপ্ন দেখেছিলেন। তার এ স্বপ্ন বাস্তবায়নে সরকার নিরলস কাজ করে যাচ্ছে। বিশ্বায়নের এ যুগে সর্বক্ষেত্রে উন্নত প্রযুক্তির সর্বোচ্চ ব্যবহারের মাধ্যমেই আমাদের এগিয়ে যেতে হবে।

আবদুল হামিদ বলেন, মুজিববর্ষের শুভলগ্নে দেশের জনগণের হাতে ই-পাসপোর্ট পৌঁছে দেয়া জাতির পিতার সোনার বাংলা গড়ার স্বপ্ন বাস্তবায়নে আরও একটি মাইলফলক, যা জাতি হিসেবে আমাদেরকে মর্যাদার আসনে অধিষ্ঠিত করেছে। আমি আশা করি জনগণকে দ্রুততম সময়ে নির্বিঘ্ন সেবাপ্রদানে বহিরাগমন ও পাসপোর্ট অধিদফতর সততা, নিষ্ঠা ও আন্তরিকতার সাথে দায়িত্ব পালন অব্যাহত রাখবে।

তিনি বলেন, জনসেবাই সরকারের মুখ্য উদ্দেশ্য ও পবিত্র দায়িত্ব। দেশ ও জনগণের প্রতি দায়বদ্ধ থেকে বহিরাগমন ও পাসপোর্ট অধিদফতর সেবার মানোন্নয়নে আরও তৎপর থাকবে, দেশবাসী তা প্রত্যাশা করে।

রাষ্ট্রপতি ই-পাসপোর্ট কার্যক্রমের সার্বিক সাফল্য কামনা করেন।