আ’লীগকে নেতৃত্বশূন্য করাই ছিলো ঘাতকদের মূল লক্ষ্য – হাফেজ রুহুল আমিন মাদানী এম.পি

এইচ. এম জোবায়ের হোসাইন :
ধর্ম বিষয়ক মন্ত্রনালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি ও ময়মনসিংহ-৭ ত্রিশাল আসনের জাতীয় সংসদ সদস্য আলহাজ্ব হাফেজ মাওলানা রুহুল আমিন মাদানী বলেছেন, বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনা এবং আওয়ামী লীগের শীর্ষ নেতাদের হত্যার মাধ্যমে দলকে নেতৃত্বশূন্য করাই ছিলো ২১ আগস্টের ঘাতকদের মূল লক্ষ্য।
তিনি বলেন, ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট বঙ্গবন্ধুর দুই কন্যা দেশে না থাকার কারণে ষড়যন্ত্রকারীদের অসমাপ্ত কাজ সমাপ্ত করতেই বারবার শেখ হাসিনাকে টার্গেট করা হচ্ছে হত্যার জন্য। বঙ্গবন্ধুকে সপরিবারে হত্যার পরে যেভাবে জেল খানায় জাতীয় চার নেতাকে হত্যা করে আওয়ামী লীগ ও বাংলাদেশকে নেতৃত্বশূন্য করার অপচেষ্টা করা হয়েছিল ২১ আগস্টেও একই উদ্দেশ্য ছিলো খুনিচক্রের। ওইদিন মহান আল্লাহর অশেষ রহমতে বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনা প্রাণে বেঁচে যান।
২১ আগস্ট উপলক্ষে শুক্রবার গ্রেনেড হামলার ঘটনার ভয়াল স্মৃতি স্মরণ করতে গিয়ে আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিলে প্রধান অতিথির বক্তব্যে উপরোক্ত কথা বলেন। ময়মনসিংহের ত্রিশাল উপজেলা ছাত্রলীগের আয়োজনে স্থানীয় নজরুল ডিগ্রি কলেজ অডিটরিয়াম হলে আয়োজিত আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিলে সভাপতিত্ব করেন উপজেলা ছাত্রলীগের সহ সভাপতি শফিউল্লাহ মোস্তফা মনির।
রুহুল আমিন মাদানী আরো বলেন, বাংলার মানুষ ধর্মপ্রাণ এবং এই অলি আউলিয়ার দেশ হওয়ার কারণে দেশের মানুষের সেবা, বঙ্গবন্ধুর অসমাপ্ত কাজ সমাপ্ত ও বাংলাদেশকে বিশ্বের বুকে একটি সমৃদ্ধশালী দেশ হিসেবে গড়ে তুলতেই মহান সৃষ্টিকর্তা রাব্বুল আলামিন তাঁকে বাঁচিয়ে রেখেছেন। গণতন্ত্রের অভিযাত্রায় সব প্রতিক‚লতা উপেক্ষা করে দেশকে এগিয়ে নিতে তিনি শেখ হাসিনার দীর্ঘায়ু কামনা করা হয় মোনাজাতে।
প্রধান অতিথি সাংসদ মাদানী ২১ আগস্টের গ্রেনেড হামলায় শহিদ মহিলা আওয়ামী লীগ সভানেত্রী আইভী রহমানসহ অন্যান্য শহিদদের বিদেহী আত্মার মাগফিরাত কামনা করেন এবং এই গ্রেনেড হামলায় নিহত ও আহত পরিবারের সদস্যদের প্রতি গভীর সমবেদনা জানান।
আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিলে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, আওয়ামীলীগের মূখপাত্র ফজলে রাব্বি, উপজেলা আওয়ামীলীগের সাবেক যুগ্ম আহবায়ক ও সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান এ.এন.এম শোভা মিয়া আকন্দ, উপজেলা আওয়ামীলীগের সাবেক সভাপতি আনোয়ার হোসেন আকন্দ, সাবেক সাধারন সম্পাদক আব্দুল হামিদ, আবুল কালাম, পৌর আওয়ামীলীগের সাবেক যুগ্ম আহবায়ক মোকছেদুল আমিন মৃধা, সাবেক ভিপি মোতালেব, উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারন সম্পাদক ইমরান হোসেন, পৌর ছাত্রলীগের সভাপতি মনোয়ার হোসেন সরকার প্রমূখ।