আন্তর্জাতিক আদালতে মিয়ানমারের বিচার শুরু

নেদারল্যান্ডের হেগে আন্তর্জাতিক বিচার আদালতে (আইসিজে) রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠীর ওপর মিয়ানমারের সেনাবাহিনীর নির্যাতন ও নিধনযজ্ঞের বিচার শুরু হয়েছে।

মঙ্গলবার (১০ ডিসেম্বর) বাংলাদেশ সময় বেলা তিনটায় বিচারের শুনানি শুরু হয়। আদালতে ১৫ জন বিচারপতির সঙ্গে যোগ দিয়েছেন দুজন এডহক বিচারপতি। ওই দুজন গাম্বিয়া ও মিয়ানমারের মনোনীত। আদালতের সিদ্ধান্ত হবে সংখ্যাগরিষ্ঠতার ভিত্তিতে।

আদালতে অং সান সু চি মিয়ানমারের পক্ষে হাজির হয়েছেন। গাম্বিয়ার পক্ষে আছেন দেশটির আইনমন্ত্রী আবুবকর মারি তামবাদু। নিয়মানুয়ায়ী শুরুতেই দুই এডহক বিচারপতি গাম্বিয়ার নাভি পিল্লাই এবং মিয়ানমারের প্রফেসর ক্লাউস ক্রেস শপথ নিয়েছেন।

এ দিকে, আন্তর্জাতিক আদালতের শুনানিকে কেন্দ্র করে ন্যায়বিচারের আশায় বাংলাদেশে আশ্রয় নেয়া লাখ লাখ রোহিঙ্গা আজ রোজা রাখবেন।

আন্তর্জাতিক আদালতে রোহিঙ্গা নিপীড়ন ও বিতাড়নের ন্যায়বিচার পেতে কক্সবাজারের রোহিঙ্গা আশ্রয়কেন্দ্রগুলোতে সকাল থেকেই নানা বয়সী মানুষকে দুহাত তুলে সৃষ্টিকর্তার কাছে প্রার্থনা করতে দেখা যায়। অনেকের চোখের পাতা ভিজে যায় ও কণ্ঠ ভারি হয়ে উঠে।

রাখাইনে সেনা নিপীড়নের মুখে বাংলাদেশে পালিয়ে আসা ২২ বছর বয়সী হাসিনা ও আরও দুজন ভুক্তভোগী গতকাল সোমবার হেগ শহরে পৌঁছেছেন।

রোহিঙ্গা সংগঠনগুলো এরইমধ্যে হেগের আদালতে শুনানিকে কেন্দ্র করে হেগ শহরে তিন দিন বিক্ষোভের ডাক দিয়েছে। সেখানে মিয়ানমার সরকারের সমর্থকরাও সমাবেশ করবে বলে ঘোষণা দিয়েছে।