আজ শুরু দুর্গোৎসব ফুলপুরে ৪৩ মন্ডপে মহাষষ্ঠীর মধ্য দিয়ে

20
দুর্গোৎসব

মোঃ খলিলুর রহমান, বিশেষ প্রতিনিধিঃ দুর্গোৎসব -মহাষষ্ঠীপূজার মধ্য দিয়ে আজ সোমবার ময়মনসিংহের ফুলপুরে ৪৩ মন্ডপে শুরু হচ্ছে পাঁচ দিনব্যাপী শারদীয় দুর্গাপূজা।

আগামী শুক্রবার বিজয়া দশমীতে প্রতিমা বিসর্জনের মধ্য দিয়ে শেষ হবে বাঙালির এই শারদোৎসব।

এ উপলক্ষ্যে উপজেলার মন্ডব গুলোতে প্রতিমা তৈরীর কাজ শেষ হয়েছে। তুলির আঁচড়ে সুন্দর করে তোলা হয়েছে দুর্গা, গণেশ, কার্তিক ও মহিষাসুরের প্রতিমা।

প্রতিমা শিল্পীরা গভীর রাত পর্যন্ত কাজ করেছে শেষ সময়ে এসে রং তুলির আঁচড়ে যেন জীবন্ত হয়ে উঠেছে প্রতিমাগুলো।

হিন্দু সম্প্রদায়ের সবচেয়ে বড় এ ধর্মীয় উৎসবকে ঘিরে এখন ফুলপুরে উৎসবের আমেজ বিরাজ করছে।

দুর্গাপূজাকে আনন্দমুখর করে তুলতে ফুলপুরে পূজা মন্ডপ গুলো বর্ণাঢ্য সাজে সাজানো হয়েছে। হিন্দু সম্প্রদায়ের প্রধান ধর্মীয় উৎসব শারদীয় দুর্গাপূজা উপলক্ষে সব ধরনের নিরাপত্তা ব্যবস্থা নিয়েছে প্রশাসন।

মহালয়ার পরেই শুরু হয়ে যায় দেবীপক্ষ। আর এই দেবীপক্ষের ষষ্ঠী অর্থাৎ শুক্লা ষষ্ঠী তিথিতে হয় মা দুর্গার বোধন।

যুগ যুগ ধরে চলে আসছে এই রীতি। মহালয়া, বোধন ও সন্ধিপূজা- এই তিন পর্ব মিলে হয় দুর্গোৎসব।

সনাতন ধর্মাবলম্বীদের বিশ্বাস অনুযায়ী, বছর ঘুরে ‘উমা’ দেবী হিমালয়ের কৈলাশ থেকে ভক্তকে দর্শন ও তাদের পূজা নিতে ফের আসছেন মর্ত্য। চন্ডীপাঠ ঢাকের বোল, শঙ্খের শব্দ আর উলুধ্বনিতে আমন্ত্রিত হবেন দেবী দুর্গা।

গতকাল রবিবার পূজামন্ডপগুলোতে দুর্গা দেবীর বোধন অনুষ্ঠিত হয়। শারদীয় দুর্গোৎসবের প্রাক্কালে এই বোধনের মাধ্যমে দক্ষিণায়নের নিদ্রিত দেবী দুর্গার নিদ্রা ভাঙার জন্য বন্দনা পূজা করা হয়। মন্ডপে মন্দীরে পঞ্চমীতে সায়ংকালে তথা সন্ধ্যায় এই বন্দনা পূজা অনুষ্ঠিত হয়।

আজ ১১ অক্টোবর ষষ্ঠী, আগামীকাল ১২ অক্টোবর সপ্তমী, ১৩ অক্টোবর অষ্টমী, ১৪ অক্টোবর নবমী এবং ১৫ অক্টোবর দশমী।

এ বছর ময়মনসিংহের ফুলপুরে পৌরসভা ও ইউনিয়নগুলোতে ৪৩ টি মন্ডপে অনুষ্ঠিত হচ্ছে দুর্গাপূজা।

শারদীয় দুর্গোৎসব উপলক্ষে পূজা পন্ডপগুলোর পুরোহিত বা ঠাকুর এবং পূজা মন্ডপে আগতদের জন্য মাস্ক পরিধান অপরিহার্য করা হয়েছে।

এ ছাড়া অন্যান্য স্বাস্থ্যবিধি মেনে পূজা উদযাপনের জন্য হিন্দু সম্প্রদায়ের প্রতি অনুরোধ জানিয়েছে উপজেলা প্রশাসন। আজ সোমবার ষষ্ঠীপূজার মধ্য দিয়ে শারদীয় দুর্গোৎসব শুরু হচ্ছে।

ছনকান্দা বাজার পূজা উদযাপন কমিটির সভাপতি বাবু শ্রী সজল ঘোষ ও সাধারন সম্পাদক বাবু শ্রী সুদেব ভৌমিক বলেন, হিন্দু ধর্মাবলম্বীদের সব চেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব শারদীয় দূর্গা উৎসব উপলক্ষ্যে পূজা কমিটি ব্যাপক প্রস্তুতি গ্রহন করেছে। দুর্গাপূজা হচ্ছে সর্বজনীন উৎসব।

এটি যদিও হিন্দু সম্প্রদায়ের ধর্মীয় অনুষ্ঠান, তবে উৎসব হচ্ছে সকলের। বিভিন্ন সম্প্রদায় ও জাতির বসবাস, সকলে মিলে প্রতি বছর আমরা সুষ্ঠুভাবে এই উৎসব উদ্‌যাপন করে আসছি। আশা করি, এবারও আমরা সকলে মিলেমিশে এ উৎসব করতে পারব।